ব্লগ একাত্তর-

অ্যানড্রয়েড (অপারেটিং সিস্টেম) এর বিস্তারিত

অ্যানড্রয়েড (Android) হচ্ছে একটি মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম। এই অ্যাপ্লিকেশনটি মোডিফইড লিনাক্স কার্নেলের উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে। যা বর্তমানে এখন গুগল এটিকে ডেভেলপ করেছে।

২০০৫ সালে ‍গুলল এলএলসি প্রাথমিক ডেভেলপাদের কাছ থেকে অ্যান্ড্রয়েড কিনে নেয়। এটি গুগল ও হ্যান্ডসেট এল্যায়েন্সের সদস্যরা অ্যান্ড্রয়েয়েড ডেভেলপমেন্ট ও রিলিজ নিয়ন্ত্র করে। অ্যান্ড্রয়েড রক্ষাবেক্ষন এবং আপডেট এর কাজ অ্যান্ড্রয়েড ওপেন সোর্স প্রজেক্টটি করে থাকে। অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিষ্টেমটি স্মার্টফোনে বেশি ব্যবহৃত হয়ে থাকে।

গুগল প্লে ষ্টোরে প্রায় ৩৫ লক্ষর উপরে অ্যাপস রয়েছে। এই অ্যাপ্লিকেশনটি স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছে খুব জনপ্রিয়। অ্যানড্রয়েডের বিতরণ উন্মুক্ত করা হয় ৫ই নভেম্বর ২০০৭ সালে।

অ্যান্ড্রয়েড সফটওয়্যার জাভা এপ্লিকেশন দ্বারা সমন্বয়ে গঠিত। এটি ডেলভিক ভার্চুয়াল মেশিনে (জেআইটি কম্পাইলেশন ব্যবহার করে) জাভা কোর লাইব্রেরিতে চলে।

অ্যান্ড্রয়েড এর ইতিহাসঃ

২০০৩ সালে অ্যান্ড্রয়েড ইনকর্পোরেট প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল পালো আল্টো ক্যালিফোর্নিয়ায়। এটির প্রতিষ্ঠাতা অ্যান্ডি রুবিন। সহ-প্রতিষ্ঠাতা রিচ মাইনার মাইনার(ওয়াইল্ডফায়ার কমউনিকেশনস, ইনকর্পোরেটেডের সহ প্রতিষ্ঠাতা)। ক্রিস হোয়াইট (ওয়েবটিভি’র ডিজাইন এবং ইন্টারফেস প্রধান) যেহেতু তারা বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নিয়োজিত ছিলেন তাই অ্যানড্রয়েডের কার্যক্রম চলতো অনেকটা গোপনে। কোম্পানির প্রাথমিক উদ্দেশ্য ছিলো ডিজিটাল ক্যামেরার জন্য একটি উন্নত মানের অপারেটিং সিস্টেম তৈরী করা। কোম্পানির প্রাথমিক উদ্দেশ্য ছিলো ডিজিটাল ক্যামেরার জন্য একটি উন্নত মানের অপারেটিং সিস্টেম তৈরী করা। যদিও পরে তারা বুঝতে পারেন ডিভাইসটির বাজার তত বড় নয়। তাই কোম্পানিটি মনোযোগ দেয় স্মার্টফোন অপারেটিং সিস্টেম তৈরীর উপর। অ্যানড্রয়েড ইনকর্পোরেটেড লুকিয়ে পরিচালনা করা হত, কিন্তু সবাইকে বলতো তারা মোবাইল সফটওয়্যারের উপর কাজ করছে।

অ্যানড্রয়েড ইনকর্পোরেটেড লুকিয়ে পরিচালনা করা হত, কিন্তু সবাইকে বলতো তারা মোবাইল সফটওয়্যারের উপর কাজ করছে। একই বছরে রুবিনের টাকা ফুরিয়ে যায়। স্টিভ পার্লম্যান, রুবিনের কাছের বন্ধু, তার জন্য ১০,০০০ ডলার নগদ একটি খামে রেখে দেয় এবং কোম্পানির ঝুঁকি নিতে অস্বীকার করে।

গুগল অ্যানড্রয়েড ইনকর্পোরেটেড ১৭ আগস্ট ২০০৫ সালে কিনে নেয়; প্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্মচারীদের তারা আগের অবস্থানেই রাখে (এন্ডি রুবিন, রিচ মাইনার এবং ক্রিস হোয়াইট) । সে সময় অ্যানড্রয়েড সম্পর্কে কিছু বিস্তারিত জানা যায়নি, কিন্তু অনেকেই ধারণা করেছিল যে গুগল মোবাইল বাজারে আসতে যাচ্ছে। গুগলে, রুবিন কর্তৃক পরিচালিত একটি দল মোবাইলের প্লাটফর্ম হিসেবে লিনাক্স কার্নেল ডেভেলপ করে। গুগল এই প্লাটফর্মকে বাজার ছাড়ে হ্যান্ডসেট এবং মোবাইল সংযোগদাতা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে শর্ত হিসেবে বলে যে তারা এর হালনাগাদ বা উন্নয়ন অব্যাহত রাখবে। গুগল কিছু হার্ডওয়্যার উপাদান এবং সফটওয়্যার অংশীদারের কথা উল্লেখ্য করে যা অনেক ক্ষেত্রে মুক্ত এবং এমনকি তাদের অংশেও।

২০০৭ সালের সেপ্টেম্বরে, ইনফরমেশন উইক প্রকাশ করে যে গুগল কিছু মোবাইল এপ্লিকেশনকে প্যাটেন্ট করে নিয়েছে। গুগল এইচটিসি, ইন্টেল, এলজি, মার্ভেল টেকনোলজি গ্রুপ, মটোরোলা, এনভিডিয়া, কোয়ালকম, স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স, স্প্রিন্ট নেক্সটেল, টি-মোবাইল এং টেক্সাস ইনস্ট্রুমেন্ট ৫ ই নভেম্বর, ২০০৭ সালে এই সকল হ্যান্ডসেটে সুচনা করে। বাণিজ্যিকভাবে ২০০৮ সালের ২২ অক্টোবরে এইচটিটি যাত্রা শুরু করে।

আরো ১৪ জন নতুন সদস্য যোগ দেয় যাতে ছিল এআরএম হোল্ডিংস, এথিরস কমিউনিকেশনস, আসুসটেক কম্পিউটার ইনকর্পোরেট, জারমিন লিমিটেড, হাওয়াই টেকনোলজিস, প্যাকেটভিডিও, সফটব্যাংক, সনি এরিকসন, তোসিবা ককর্পোরেশন এবং ভোডাফোন গ্রুপ। এটির তারিখ ছিল ৯ই ডিসেম্বর, ২০০৮ সালে।

গুগল নেক্সাস সিরিজের স্মার্টফোন ছাড়ে, যা অ্যানড্রয়েড চালিত স্মার্টফোন এবং ট্যাবলেট সিরিজের নাম এবং প্রস্তুত করা হয় অংশীদারিত্বের মাধ্যমে ২০১০ সালে । এইচটি গুগলের সাথে মিলে প্রথম নেক্সাস স্মার্টফোন তৈরি করে যা ছিল নেক্সাস ওয়ান।  গুগল তারপর থেকেই এই সিরিজের ডিভাইস ডেভেলপ করে এসেছে, যেমন—নেক্সাস ৫ তৈরী করে এলজি, নেক্সাস ৭ (ট্যাবলেট) তৈরী করে আসুস। গুগল তাদের নেক্সাস ধারার যন্ত্রটি ছাড়ে মূলত অ্যানড্রয়েডের একেবারে মূল ধারার পণ্য হিসেবে। কারণ এটি একেবারে নতুন, হালনাগাদকৃত ও উন্নীত অপারেটিং সিস্টেম, সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যারের বৈশিষ্ট্য সংযুক্ত করে ছাড়া হয়।

২০১৩ সালের ১৩ই মার্চ ল্যারি পেজ তার একটি ব্লগ লেখায় জানান অ্যানডি রুবিন অ্যানড্রয়েড বিভাগ থেকে গুগলের অন্য একটি প্রকল্পে চলে গিয়েছেন। ২০০৮ থেকেই, অ্যানড্রয়েড অসংখ্য হালনাগাদ পেয়েছে বা করা হচ্ছে যার মাধ্যমে অপারেটিং সিস্টেমটিকে উন্নত ও ত্রুটি মুক্ত করা হয়, নতুন সুযোগ সুবিধা যোগ করা হয়। প্রত্যেক বড় ধরনের সংস্করণের নাম ইংরেজি বর্ণমালা অনুসারে রাখা হয় যেমন সংস্করণ ১.৫ কাপকেকের (Cupcake) পর ডোনাট (Donut) ১.৬ সংস্করণ। ৪.৪.৪ কিটক্যাটⓠ আসলে নিরাপত্তা বিষয়ক হালনাগাদ যা ছাড়া হয় ১৯ শে জুন ২০১৪ সালে ৪.৪.৩ সংস্করণ ছাড়ার অল্প কিছু দিনের মধ্যে। অ্যানড্রয়েড ৫.০ ললিপপ উন্মুক্ত করা হয়েছিল ১৪ নভেম্বর ২০১৪ সালে এবং এতে মেটেরিয়াল ডিজাইন সূচনা করা হয়; পরে আরো দুটি ত্রুটি সংশোধন সংস্করণ ছাড়া হয় (৫.০.১ এবং ৫.০.২)।

২০১৪ সালে গুগল অ্যানড্রয়েড ওয়ান বাজারে ছাড়ে যা একটি স্মার্টফোনের আদর্শ বৈশিষ্ট্য ধারণ করে। প্রধানত এটি যারা ডেভেলপার তাদের জন্যই ছাড়া হয়। অ্যানড্রয়েড ওয়ানের স্মার্টফোনগুলোতে অ্যানড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের সর্বশেষ সংস্করণ রাখা হয় যা মূল অ্যানড্রয়েডে সংস্করন বা স্টক অ্যানড্রয়েডের কাছাকাছি।

৬ আগস্ট ২০১৮ মোতাবেক, অ্যানড্রয়েডের নতুন সংস্করণ অ্যানড্রয়েড ৯.০ পাই মুক্তি দেওয়া হয় শুধুমাত্র পিক্সেল যন্ত্রের জন্যে। এ বছরের শেষের দিকে অন্যান্য যেসব যন্ত্র বেটার জন্যে সাইন আপ করেছিলো, তারা এ হালনাগাদটি পাবে। গুগল এ বছরের আগস্টে তা সবার জন্যে উন্মুক্ত করবে। ২০১০ থেকে ২০১৩ পর্যন্ত হুগো বাররা অ্যানড্রয়েড দলের পক্ষে তাদের পন্যের মুখপাত্র হিসেবে ছিলেন। তিনি অ্যানড্রয়েড প্রতিনিধিত্ব করতেন সংবাদ সম্মেলন এবং গুগল আই/ও, গুগলের বার্ষিক ডেভেলপার-কেন্দ্রিক সংবাদসম্মেলনগুলোতে। তিনি পুরো অ্যানড্রয়েড ইকোসিস্টেম যাতে সফটওয়্যার হার্ডওয়্যার রয়েছে তার পুরোটাই প্রতিবেদন করতেন। যেমন— হানিকম্ব ,আইস ক্রিম স্যান্ডউইচ, জেলি বিন এবং কিটক্যাট অপারেটিং সিস্টেম যাত্রার সংবাদ সম্মেলন। নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ স্মার্টফোন, নেক্সাস ৭ ৭ এবং নেক্সাস ১০ ট্যাবলেটসমূহ। এছাড়া আরো গুগল সম্পর্কিত পণ্য যেমন গুগল নাও এবং গুগল ভয়েস সার্চ ২০১৩ সালে বাররা অ্যানড্রয়েড দল ছেড়ে চীনা স্মার্টফোন প্রস্তুতকারণ শাওমিতে যোগ দেন।

অক্টোবর ২০১৬ তে গুগল পিক্সেল ও পিক্সেল এক্সএল রিলিজ করে, যেগুলোকে বলা হয় গুগল কর্তৃক প্রস্তুতকৃত প্রথম স্মার্টফোন। ২০১৭ সালে নতুন সংস্করণ প্রকাশের পর গুগল পিক্সেল নেক্সাস সিরিজকে প্রতিস্থাপন করে।

প্রিয় টিউনার এবং ভিজিটরগণ আমার পোষ্টটি যদি আপনদের ভালো লেগে থাতে তাহলে অবশ্যই নিয়োমিত ভিজিটর করবেন। তাহলে আমার পোষ্টটি শেষ করছি।

Advertisements
mm

Rony

যা জানি তা জানাতে চাই ☺

Add comment

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.