ব্লগ একাত্তর-

ইন্টেল 8086 মাইক্রোপ্রসেসর সম্পর্কে জানুন। পর্ব-১

১৯৭৮ সালে ইন্টেল কর্পোরেশন সর্ব প্রথম ৮০৮৬ মাইক্রোপ্রসেসর বাজারজাত করে। ইহা ১৬ বিটের মাইক্রোপ্রসেসর, যা ৪০০ নেনোসেকেন্ডের মাধ্যে ইন্সট্রাকশন এক্সিকিউট করতে পারে। 8085 মাইক্রোপ্রসেসরের তুলনায় ইহা অনেক দ্রুত ইন্সট্রাকশন এক্সিকিউট করতে সক্ষম, যা মাইক্রোপ্রসেসরের ইতিহাসে এক বিরাট সাফল্য হিসাবে চিহিৃত হয়। ইহা ৮ বিট প্রসস্থ ১ মেগাবাইট বা ১৬ বিট প্রসস্থ ৫১২ কিলোওয়ার্ড মেমোরীকে এ্যাড্রেস করতে পারে। ইহা HMOS টেকনোলজী ব্যবহারপূর্বক ডিজাইনকৃত এবং প্রায় ২৯,০০০ ট্রানজিষ্টরের সমন্বয়ে তৈরী। ইহা ৪০ পিনের ডিপ ( DIP- Dual in line package) প্যাকেজ এবং ইহার অপারেশনের জন্য +5 ভোল্ট পাওয়ার সাপ্লাই প্রয়োজন। ইহা তিনটি বিভিন্ন ব্লক স্পীডে অপারেট হতে পারে। তবে সাধারনতঃ ৫ মেগাহার্টজ ইন্টার্নাল ক্লক ফ্রিকোয়েন্সিতে কাজ করে। ইহার ইনপুর ক্লক সিগন্যাল জেনারেট কারার জন্য এক্সার্নাল ক্লক জেনারেটর/ড্রাইভার ব্যবহৃত হয়। এক্সটার্নাল ক্লক জেনারেটর হিসাবে 8284 ব্যবহৃত হতে পারে। ইহার 5 মেগাহার্টজ ইন্টার্নাল ক্লকের জন্য 8284 এর সাথে ১৫ মেগাহার্টজের ক্রিস্টার ব্যবহার করা হয়, যা ক্লক জেনারেটর দ্বারা ইন্টার্নালি তিন ভাগে বিভক্ত হয়ে ৫ মেগাহার্টজ জেনারেট করে। ক্লক জেনারেটরের ক্লক পিনের সাথে ৮০৮৬ এর ক্লক পিনের কানেকশন থাকে, যার মাধ্যমে ৫ মেগাহার্টজ ক্লক ফ্রি ফ্রিকোয়েন্সি ব্যবহার করা হয়।

8086 মাইক্রোপ্রসেসরে ২০টি এ্যাড্রেস লাইন বিদ্যমান, ইহাদের সাহায্যে 1 মেগাবাইট (২১০) মেমোরীকে এ্যাড্রেস করা যায়। এক্ষেত্রে সেগমেন্ট এ্যাড্রেসের সাথে অফসেট এ্যাড্রেস যোগ হয়ে মেমোরী এ্যাড্রেস বা লোকেশন নির্ধারিত হয়। ইহা ৬ বাইটের একটি ইন্সট্রাকশন প্রি-ফেচ কিউ ব্যবহার করে, যার ফলে ইন্সট্রাকশন এক্সিকিউশন প্রক্রিয়া দ্রুততর হয়। ইহার মেমোরীতে ইন্সট্রাকশনসমূহ বাইট হিসাবে অর্গানাইজ করা হয় এবং মেমোরী এ্যাড্রেসকে 00000H FFFFH পর‌্যন্ত বিবেচনা করা হয়। প্রতিটি এ্যাড্রেসে ৮ বিট অপারেশন করা যায়। ১৬ বিটের অপারেশনে ২টি পাশাপাশি এ্যাড্রেস ব্যবহৃত হয়।

8086 মাইক্রোপ্রসেসরে ৪টি জেনারেল পারপাস রেজিষ্টার (AX, BX, CX এবং DX), ৪টি পয়েন্টার ও ইনডেক্স রেজিষ্টার ( BP, SP, SI এবং DI), ৪টি সেগমেন্ট রেজিষ্টার (CS, DS, SS এবং ES) ১টি ইন্সট্রাকশন পয়েন্টার (IP) এবং ১টি ফ্লাগ রেজিষ্টার ব্যবহৃত হয়। ইহার প্রত্যেকটি রেজিষ্টার ১৬ বিটের হয়ে থাকে। তবে ফ্লাগ রেজিষ্টারের ১৬ বিটের মধ্যে ৯টি বিট ফ্লাগ হিসাবে ব্যবহৃত হয় (C, P, A, Z, S, T, I, D এবং O)। ৮ বিট প্রসেসরের রেজিষ্টারের তুলনায় ইহার রেজিষ্টরগুলোকে ৮০০ নেনোসেকেন্ডের পরিবর্তে ২০০ নেনোকেন্ডে এ্যাকসেস করা যায়। ৮০৮৬ ২টি মোডে ব্যবহৃত হতে পারে। একটি হচ্ছে মিনিমাম মোড এবং অপরটি ম্যাক্সিমাম মোড। ইহা মিমিাম মোডে ইউনিপ্রসেসরে এবং ম্যাক্সিমাম মোডে মাল্টিপ্রসেসর হিসাবে ব্যবহৃত হয়। ম্যাক্সিমাম মোডে ইহার সাথে ৮২৮৮ বাস কন্ট্রোলার ব্যবহৃত হয়। ৮০৮৬ এ মূলতঃ ২টি ইউনিট বিদ্যমান। একটি বাস ইন্টারফেস ইউনিট এবং অপরটি এক্সিকিউশন ইউনিট। বাস ইন্টারফেস ইউনিট বাহিরের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে এবং এক্সিকিউশন ইউনিট ইন্সট্রাকশন এক্সিকিউট করে।

ইহার ক্ষেত্রে ৫টি গ্রুপে এ্যাড্রেসিং মোড ব্যবহৃত হয় এবং ৩০০টি অপকোড সম্বলিত প্রায় ১১৭টি বিভিন্ন ধরনের ইন্সট্রাকশন ব্যবহৃত হয়। এই প্রসেসরের ক্ষেত্রে অড এবং ইভেন্ট নাম ২টি মেমোরী ব্যাংক ব্যবহৃত হয়। সার্বিকভাবে ৮০৮৬ এর পারফরমেন্স ৮০৮৫ এর তুরনায় দ্রুত গতি সম্পন্ন।

8086 মাইক্রোপ্রসেসরের বিট সংখ্যাঃ

একটি মাইক্রোপ্রসেসরের ALU ফারেশনের বিট ক্যাপাসিটির উপর মাইক্রোপ্রসেসরের বিট সংখ্যা নির্ভর করে। অর্থাৎ, একটি মাইক্রোপ্রসেসরের ALU একসাথে যত বিটের ডাটা প্রসেস করতে পারে, উক্ত মাইক্রোপ্রসেসরকে তত বিটের মাইক্রোপ্রসেসর বলা হয়। এক্ষেত্রে উহার জেনারেল পারপাস রেজিষ্টার ষ্ট্রাকচার এবং ডাটা বাসও তত বিটের হতে পারে। মাইক্রোপ্রসেসরের বিট সংখ্যা বিভিন্ন রকমের হয়। যেমন- 4, 8, 16, 32, 64 কিংবা 128 বিটের মাইক্রোপ্রসেসর। 8086 মাইক্রোপ্রসেসর হলো 16 বিটের মাইক্রাপ্রসেসর। কারন 8086-এর ALU একসাথে 16 বিটের ডাটাকে প্রসেস করাতে পারে। উহার জেনারেল পারপাস রেজিষ্টার ষ্ট্রাকচার এবং ডাটা বাসও ১৬ বিটের।

Advertisements
mm

Rony

যা জানি তা জানাতে চাই ☺

Add comment

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.