ব্লগ একাত্তর-

এ্যারোপ্লেন কিভাবে বাতাসে ভাসে জানেন?

আমাদের অনেকের জানতে ইচ্ছে করে অ্যারোপ্লেন,বিমান,হেলিকপ্টার,রকেট কিভাবে শূন্যের উপর ভেসে বেড়াই, আমরা অনেকে অবাক হয়ে উপরের দিকে হা করে তাকিয়ে থাকি আর ভাবি যে কিভাবে এত বড় একটি যন্ত্র বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে। তাই আজকে উক্ত শূন্যের উপর ভেসে বেড়ানো যন্ত্র নিয়ে লিখা এই পোষ্টটি এ্যারোপ্লেন কিভাবে বাতাসে ভাসে।

সমআয়তন বাতাসের চেয়েও ওজনে ভারী বিমানের বাতাসেভেসে থাকার কায়দাটা আছে তার ডানার আকৃতি ও গতিবেগের মধ্যে । কোন বিমানই বেলুনের মতো স্থির অবস্থায় বাতাসে ভাসতে পারে না। এ্যারোপ্লেন যখন মাটির উপর দিয়ে গড়িয়ে যায়,তার ডানার উপর নীচ উল্টোদিকে থেকে বাতাস বয়ে আসে। বিমানের ডানার প্রচ্ছদের একটি বৈশিষ্ট্য আছে,যাকে বলা হয় অ্যারোফয়েল সেকশন। এর উপরের দিকটা নীচের দিকের তুলনায় বেশি বাঁকানো এবং লম্বায় বড়।

বিমান যখন জোরে চলে ,তখন ডানার উপর দিকে বাতাসের গতিবেগ নিচের তুলনায় বেশী হয়। বিমান জোরে চলার ফলে উপরের দিকে বাতাসের চাপ কমে যায় এবং নীচে বেশী হয়। ডানার বেগ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তার উপরের দিকে ওঠার প্রবণতা বাড়ে। এক সময় বাতাসের উর্ধ্বমুখী বল যখন এ্যারোপ্লেনের উপর মধ্যাকর্ষণ বলের চেয়ে বেশী হয়,তথন এ্যারোপ্লেন বাতাসে ভেসে ওঠে। আকাশে একবার উঠে যাওয়ার পর ইঞ্জিন অ্যারোপ্লেনকে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে শক্তি জোগায়। এ্যারোপ্লেনের গতিবেগ বাড়লে প্লেনের ক্রমশ উপরে ওঠে যাওয়ার কথা।

এক্ষেত্রে এ্যারোপ্লেন সুচালো মুখটাকে নীচের দিকটাতে নামিয়ে এমন একটা অবস্থা সৃষ্টি করা হয় যাতে বাতাসের উর্ধ্বমুখী বল যা এ্যারোপ্লেনকে ঠেলে আকাশে তুলতে চায় ও মধ্যার্কষণ বল যা অ্যারোপ্লেনকে মাটিতে নামিয়ে আনতে চায় তারা পরস্পর সমান হয়। এর ফলে এ্যারোপ্লেন উপর নীচ ওঠানামা করে এক জায়গায় ভেসে থেকে সামনের দিকে এগিয়ে চলে। ধন্যবাদ জানিয়ে পোষ্টটি আজকের মত এখানেই শেষ করছি।

Advertisements
mm

Rony

যা জানি তা জানাতে চাই ☺

Add comment

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.