ব্লগ একাত্তর-

ফেসবুক একাউন্ট সুরক্ষা রাখতে করণীয় কি

সামাজিক যোগাযোগের বড় একটি মাধ্যম হচ্ছে ফেসবুক। বর্তমান যুগে ফেসবুক ছাড়া চলেই না। পৃথিবীতে যত সামাজিক যোগাযোগ রয়েছে তার মধ্যে ফেসবুক সব থেকে জনপ্রিয়। বর্তমানে ফেসবুকের মাধ্যমে প্রোডাক্ট প্রোমট, বিভিন্ন ওয়েবসাইটের ভিজিটর আনা সহ ইত্যাদি কাজে ফেসবুক এর কোন তুলনা হয় না। তাই আমি আজকে আপনাদের জন্য শেয়ার করছি ফেসবুক আইডি সুরক্ষা রাখার করণীয় কি। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।

১. মেইল থেকে সতর্ক থাকুন- বর্তমানে একটি বড় সমস্যা হচ্ছে, ফেসবুকে মেইল পাঠিয়ে পাঠাচ্ছে হ্যাকাররা। এই মেইলের ইনবক্সে ঢুকলে পাওয়া যাবে একটি লিংক আর সেই লিংকে ক্লিক করলেই একদম সর্বনাশ।কারণ ঐ লিংকটি কোন ফেসবুক থেকে আসেনাই । ইদানীং কিছু হ্যাকাররা এই ধরনের লিংক শেয়ার করে সব কিছু হাতানোর চেষ্টা করছে, এবং সফলও হচ্ছে। হ্যাকাররা প্রথমে আপনার আইডির উপর নজর দিচ্ছে, এরপর তারা আপনাকে একটি লিংক দিবে, সেখানে লেখা থাকবে, আপনার আইডিটি কিছুদিন ধরে ব্যবহার হচ্ছে না, আপনার আইডিতে কিছু জিনিস ডিলেট করতে হবে ইত্যাদি এই ধরনের কিছু আপনাকে মেসেজ থাকবে। এবং সেই মেসেজে লেখা থাকবে ‘ভিউ মেসেজ’ এবং ‘ গো টু ফেসবুক’। আপনি এর যে কোন একটিতে ক্লিক করলেই আপনার আইডির সকল তথ্য হ্যাকারদের হাতে চলে যাবে।

২. তৃতীয় পক্ষের অ্যাপস থেকে সাবধান- গুগল প্লে-ষ্টোরে অনেক ধরেন অ্যাপস পাওয়া যায়। আপনি যদি প্লে-ষ্টোরে ফেসবুক লিখে সার্চ করেন তাহলে কয়েক লক্ষ অ্যাপস শো করবে। কিন্তু ঝামেলাটা এখানেই, সব অ্যাপসই কিন্তু সুবিধার নয়। এমন অনেক অ্যাপস রয়েছে যেগুলোতে হ্যাকারদের ফাঁদপাতা থাকে। উদারহন দেয়া যাক- আপনি প্লে-ষ্টোরে গিয়ে সার্চ করলেন ফেসবুক লিখে সেখানে আপনি অনেক ধরনের অ্যাপস দেখতে পাবেন। সব অ্যাপস কিন্তু সুবিধার নয়। সব সময় ফেসবুকের অফিসিয়াল অ্যাপস ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন।

৩. আইডি ভেরিফাই করণ- ফেসবুকের আইডি ভেরিফাই করে রাখবেন। যদি কোন নতুন ডিভাইস থেকে আপনার আইডি লগিন করতে হয় তাহলে মোবাইল ভেরিফাই এর মাধ্য প্রবেশ করতে হবে। যেমন- আপনি একটি নতুন ডিভাইসে আপনার ইউজার নেইম এবং পার্সওয়ার্ড দিয়ে লগিনে ক্লিক করলেন, ক্লিক করার সাথে সাথে মোবাইলে একটি মেসেজ আসবে সেখানে একটি কোর্ড দেয়া থাকবে সেই কোর্ড ছাড়া আইডিতে প্রবেশ করা যাবে না। আপনার মেসেজে যে কোর্ডটি আসবে সেটি মূল সার্ভার থেকে আসবে। অ্যাকাউন্ট ভেরিফাই করার জন্য আপনাকে যা যা করতে হবে- প্রথমে Account Setting>Security সেকশনে থাকা Login Approvals এর Require to enter a security code each time an unrecognized computer or device tries to access my account মার্ক করে রাখুন। এরপর Next বাটনে ক্লিক করে মোবাইলে এস.এম.এস প্রাপ্ত কোর্ড লিখে Next চাপুন এবং সেভ করুন।

৪. এন্টিভাইরাস ব্যবহার করণ- বিশেষ করে পিসিতে এন্টিভাইরাস ব্যবহার করাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। পিসির জন্য কিলকার বা রিমোট অ্যাসেস ট্রোজান নামক ভাইরাসটি খুবই বিপদ জনক। এই ভাইরাসটি তৈরি করেছে হ্যাকাররা। তাই পিসিতে ভালো মানের একটি এন্টিভাইরাস ব্যবহার করবেন।

সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে আমার পোষ্টটি শেষ করছি। ব্লগ৭১ এর সাথে থাকুন।

More Post……

Advertisements
mm

Rony

যা জানি তা জানাতে চাই ☺

Add comment

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.