ব্লগ একাত্তর-

ফেসবুক ব্যবহারের ভালো দিক এবং খারাপ দিক

ফেসবুক ব্যবহারেরর কিছু ভালো দিক এবং খারাপ দিকগুলো নিয়ে আপনাদের মাঝে আলোচনা করব। তাহলে চলুন বন্ধুরা শুরু করা যাক।

ফেসবুক ব্যবহারে সুবিধাঃ

১. ফেসবুক আমাদের জীবনকে অনেক সহজ করে দিয়েছে। ফেসবুক আমাদের বন্ধু, বান্ধব, আত্মীয়-স্বজনের মধ্যে সম্পর্কটা বজায় রাখে। ফলে যত দূরেই থাকুক সম্পর্কটা থাকবে অটুট।

২. বর্তমান একটি ওয়েবসাইটের জন্য ভিজিটর আনতে ফেসবুক খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ওয়েব সাইটের মালিকেরা ওয়েব সাইটের নাম অনুযায়ী একটি ফেসবুক পেজ খুলে নিচ্ছে এবং সেই পেজের মাধ্যমে সাইটে ভিজিটর আনছে। ফলে লাভবান হচ্ছে নিত্যনতুন ওয়েবসাইটের মালিকেরা।

৩. ফেসবুকে অনেক শিক্ষানীয় পোষ্ট পাওয়া যায়, যা থেকে অনেক উপকৃত হচ্ছে ছাত্র/ছাত্রীরা।

৪. কাজের ফাকে সময় কাটানোর দারুন একটি উপায়, তা হচ্ছে ফেসবুক। কাজের ফাকে একটু ফেসবুক চালিয়ে নিলে কিছুটা রিল্যাক্স মনে হবে।

৫. বিভিন্ন গ্রুপের মাধ্যমে পরামর্শ দেয়া নেয়া এবং আলাপ আলোচনার সুযোগ রয়েছে।

ফেসবুক ব্যবহারে অসুবিধা:

১. ফেসবুক ব্যবহার একটা নেশা হিসাবে ধরতে নিতে পারেন। অতিরিক্ত ব্যবহারে মানষিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করে।

২. ফেসবুক ব্যবহারকারীরা বেশির ভাগ রাত্রে ফেসবুক ব্যবহার করে। ফলে ঘুমাতে অনেক রাত হয় ফলে শারীরিক ভাবে ক্ষতি হয়।

৩. অল্প বয়সী ছেলে/মেয়েরা বেশির ভাগই অপরিচয় লোকেদের সাথে সম্পর্কে জরিয়ে পরে। এতে করে জীবনেরও ঝুঁকি হয়ে প্রযন্ত হয়ে যায়।

৪. ফেসবুক ব্যবহার মানেই সারাদিন স্ট্যাটাস এবং শেয়ার করা। এতে করে ব্যাক্তিত্ব নষ্ট হয়।

৫. ছাত্রদের ক্ষেত্রে অারও বিপত জনক। কারন, পড়ার টেবিলে যদি স্মার্টফোন থাকে তাহলে চেষ্টা করবে ফেববুক থেকে ঘুরে আসতে। এতে পড়া শোনার ক্ষতি হবেই।

৬. যেহেতু বেশির ভাগ ছেলে/মেয়েরা রাত্রে ফেসবুক ব্যবহার করে তাই, রাত্রে ফেসবুক ব্যবহারের ফলে চখের ক্ষতি হবেই।

৭. কাছের কেউ যদি ছবিতে লাইক না করে তাহলে কিন্তু দূরত্ব সৃষ্টি হয়।

সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ্য থাকুন। এই কামনায় আমার পোষ্টটি শেষ করছি।

Advertisements

Add comment

Your Header Sidebar area is currently empty. Hurry up and add some widgets.