Home / এন্টিভাইরাস / ফ্রিতে অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহারের কিছু অসুবিধা। জানতে বিস্তারিত পড়ুন।

ফ্রিতে অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহারের কিছু অসুবিধা। জানতে বিস্তারিত পড়ুন।

আমরা ফ্রি কথাটা শুনলে খুব আনন্দ পাই কারণ ফ্রিতে তো আর টাকা লাগে না। কিন্তু অনেক সময় ফ্রি বিপদও ডেকে আনতে পারে। কম্পিউটার বা মোবাইল একটি প্রয়োজনীয় ডিভাইস। কম্পিউটার বা মোবাইলের সুরক্ষার জন্য অ্যান্টিভাইরস খুব জরুরী। গুগলে সার্চ দিলে অনেক ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস পাওয়া যায় কিন্তু সেই অ্যান্টিভাইরসই যদি বিপদের কারণ হয়ে দ্বাড়ায় তাহলে তো ব্যবহার না করাটাই ভালো। এখন কথা হচ্ছে অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করতে হবে তবে সেটি পেইড ভার্ষণ। অর্ধাৎ লাইসেন্স করা ভাইরাস। বাজারে অনেক ধরনের লাইসেন্স প্রাপ্ত অ্যান্টিভাইরাস পাওয়া যায় সেগুলো নিরাপদ।

ফ্রি অ্যান্টিভারাইস থেকে সাইবার ক্রাইম হওয়ার সম্ভাবন বেশি থাকে। আপনার অফিসে যদি আপনি পিসিতে ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করেন তাহলে অফিসিয়াল নিরাপত্তাটা কম থাকে। অফিসের অনেক কিছুই গোপন তথ্য থাকে যেগুলো ফাঁস হয়ে গেলে খুব ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আপনি বলতে পারেন কিভাবে ফাঁস হবে? আপনার অফিসের যে কম্পিউটার বা ল্যাপটপ থাকে সেটিতে অবশ্যই আপনি ইন্টারনেট ব্যবহার করেন! ইন্টারনেট ছাড়া তো আপনি ইমেইল বা প্রয়োজনীয় কিছু ডাউনলোড করতে পারবেন না। পিসিতে ফ্রি অ্যান্টিভাইরস ইনষ্টল করাটা কিন্তু তাদের সার্ভার থেকে নিয়ন্ত্রণ করে এতে করে আপনার প্রয়োজনীয় অনেক গোপন তথ্য তারা নিয়ে নিতে পারে। বিনামূল্যে পাওয়া এসব নিরাপত্তা প্রোগ্রাম রুটকিট, স্পাইওয়্যার বা হ্যাকারদের আক্রমণ ঠেকাতে পারে না। এ ছাড়া নিত্যনতুন সংক্রামিত কম্পিউটার ভাইরাস ও কি-লগারসহ বিভিন্ন অনলাইন হুমকির মুখে পরে।

অ্যান্ড্রয়েড ফোনের জন্য ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস খুবই বিপদ জনক ব্যাপার। অ্যান্ড্রয়েড ফোনে থাকে অনেক গোপনীয় তথ্য যা আপনি কাউকে দেখাতে চান না কিন্তু ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহারের কারণে তারা আপনার কাছে থেকে অনুমতি ছাড়াই সকল তথ্য ভান্ডার চুরি করে নিতে পারে। এতে করে আপনি খুব বিপদের মুখে পরতে পারেন।

ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস আরও অনেক ক্ষতি করে যেমন, আপনার পিসি বা মোবাইলকে অনেক স্লো করে দিতে পারে। যে কারণে ফ্রি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার ইনষ্টল করাটাই ভালো । বাজারে অনেক ধরনের অ্যান্টি ভাইরাস, ইন্টারনেট সিকিউরিটি ও টোটাল সিকিউরিটি সফটওয়্যার পাওয়া যায়। প্রতিটির বৈশিষ্ট্য প্রায় একই রকম। আবার ভিন্নতাও রয়েছে কিছু। কী কী সুবিধা আছে এবং ঘরে কিংবা অফিসে, নাকি ব্যবহারকারী কতজন তার ওপর নির্ভর করে দাম।

প্রিয় বন্ধুগণ, আপনার পিসি বা মোবাইলকে নিরাপত্তার দেওয়ার জন্য অবশ্যই লাইসেন্স কী অথ্যাৎ প্রিমিয়াম অ্যান্টিভাইরাস ব্যবহার করুন।

About Rony

mm
যা জানি তা জানাতে চাই ☺

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *