Home / লাইফস্টাইল / বুদ্ধিমান ব্যাক্তিদের ১০টি বৈশিষ্ট্য থাকে যা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা হলো।

বুদ্ধিমান ব্যাক্তিদের ১০টি বৈশিষ্ট্য থাকে যা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা হলো।

ব্লগ৭১ এর প্রিয় টিউনার এবং ভিজিটরগণ কেমন আছেন সবাই? সৃষ্টির সেরা জীব মানুষ হিসাবে স্বীকৃত। কারণ মানুষই একমাত্র জীব যার বিবেক এবং জ্ঞান রয়েছে। মানুষের মধ্যে যাদের বুদ্ধিমত্তা স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি তাদেরকে আমরা ‘বুদ্ধিমান’ বলি। বুদ্ধিমানদের ধৈর্য্য, বিচার ক্ষমতা সাধারণ বুদ্ধিমত্তাদের থেকে বেশি থাকে। আসুন আমরা নিচের থেকে জেনে নেই তাদের ১০টি বৈশিষ্ট্য ।

১. বুদ্ধিমান ব্যাক্তিরা সব কিছু শিখতে ভালো ভালো বাসেন। যারা বুদ্ধিমান তারা সব কিছুর মধ্যে কিছুর মধ্যে ভালোটা আগে খুঁজে বুদ্ধিমান মানুষরা সবসময়ই নিজের জন্য একান্তে কিছুটা সময় কাটানোর ওপর গুরুত্ব দেন। আত্ম-উপলব্ধি এবং আত্ম-উন্নয়নের জন্য নিজের জন্য একান্তে সময় কাটানোও জরুরি।

২. প্রযুক্তিনির্মাতা অ্যাপলের স্টিভ জবসকে সকলে বুদ্ধিমান হিসেবেই জানেন। তিনি কলেজের পড়াশুনাটাও শেষ করতে পরিনি। তিনি বলতেন, জীবনে সফল হতে হলে ক্লাসরুমের বাইরেও শিখতে হবে। বুদ্ধিমানরা জানেন, কোনো মানুষের পক্ষে সবকিছু জানা সম্ভব নয়।

৩. বুদ্ধিমান লোকরা স্রোতের বিপরীতে কাজ করেন। বিশ্বের শীর্ষ ধনীরা হয়তো অন্যদের চেয়ে আলাদা মানুষ নন কিন্তু তারা অন্যদের চেয়ে আলাদা কাজ করেন। তারা কখনোই সঠিক সুযোগের জন্য অপেক্ষা করেন না। বরং তারা নিজেরাই নিজেদের জন্য সুযোগ তৈরি করে নেন।

৪. বুদ্ধিমানেরা কখনোই কৌতুহল হারান না। প্রত্যেকটি জিনিস কেন হচ্ছে, কি হচ্ছে, কি করে হচ্ছে- এ সবকিছুই বুঝতে চান তারা। প্রশ্ন করে যান অবিরত। আর তাই প্রতিনিয়ত একের পর এক আবিষ্কার করে যেতে বিন্দুমাত্র ক্লান্তিবোধ করেন না মানুষগুলো। বরং কিছু একটা খুঁজে পেলে সেটা দিয়ে নতুন কিছু জানার ব্যাপারেই আগ্রহ থাকে তাদের বেশি।

৫. বুদ্ধিমানরা উদারনৈতিক হন, মূল্যবোধের কড়াকড়ি নিয়ে ততটা মাথা ঘামান না। আরেকটি বৈশিষ্ট্য হলো তারা প্রায়শই ঈশ্বরে অবিশ্বাসী হন। বুদ্ধিমানদের এই গুণটি থাকে।তারা জাতি, ধর্ম, বর্ণ বা লিঙ্গ দিয়ে কাউকে বিচার করেন না। তারা ভিন্নমতের প্রতি সহনশীল হয়ে থাকেন। তারা মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হোন।

৬. বুদ্ধিমানদের অনুমান ক্ষমতা ভালো হয়।পরিবেশের সাথে কার্যকরভাবে মানিয়ে চলার ক্ষমতা বুদ্ধিমত্তার অন্যতম শর্ত। বুদ্ধিমান মানুষ সহজেই নতুন পরিবেশে নিজেকে বদলাতে পারেন এবং সেই পরিবেশেও পরিবর্তন আনেন। এই বিশেষ গুণের কারণে তারা বন্ধু এবং প্রিয়জনের খারাপ সময়ে তাদেরকে বুঝতে পারেন। তাদের প্রয়োজনীয় সহায়তা করতে পারেন এবং তাদের সমস্যা সমাধান করতে পারেন।

৭. ব্যক্তিত্ববাণ পুরুষ অযথা কারো সাথে ফ্লাট করেন না, কোন মেয়েকে উত্যক্ত করার তো প্রশ্নই আসে না। প্রেম করার জন্য ডেস্পারেট আচরণ করেন না মোটেও।

৮. বুদ্ধিমত্তার সঙ্গে নিজেকে নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতার একটি যোগসূত্র পাওয়া যায় বিভিন্ন গবেষণায়। দেখা গেছে অত্যন্ত বুদ্ধিমান ব্যক্তিরা নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতেও দক্ষ।

৯. বুদ্ধিমান ব্যক্তিরা মোটেই গোমড়ামুখো নন। তারা সর্বদা রসবোধের পরিচয় দেন। যে কোনো কঠিন বিষয়কে সহজভাবে হাস্যরসের মাধ্যমে উপস্থাপনেও তারা দক্ষ।

১০. প্রচলিত ধ্যান ধারণা অতিক্রম করে নতুন কিছু প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করে রাত জাগা মানুষেরা। পরিবর্তনের আঙ্গিনায় নিজেকে এবং সমাজকে নিয়ে যেতে সে বদ্ধ পরিকর। তাই সবার চেয়ে ব্যতিক্রমি হয় এসব রাতজাগা মানুষেরা।

বন্ধুগণ আমার এই পোষ্টি আপনাদের কেমন লাগলো জানাবেন। ভালো থাকবেন সবাই। আবার পরবর্তী পোষ্ট নিয়ে আবার হাজির হবো। সবাই ভালো থাকবেন।

উইলিয়াম সেক্সপিয়ার

About Rony

mm
যা জানি তা জানাতে চাই ☺

Check Also

কিছু অদ্ভুত সত্য তথ্য যা আপনার অজানা থাকতে পারে।

ব্লগ৭১ এর পক্ষ থেকে সবাইকে জানাই অনেক অনেক অভিন্দন। আজকে আমি একটু ভিন্ন মাত্রিক পোষ্ট …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *