Home / ভ্রমণ / যারা ঘুরার কথা ভাবছেন তাদের জন্য পৃথিবীর দারুণ কিছু জায়গা

যারা ঘুরার কথা ভাবছেন তাদের জন্য পৃথিবীর দারুণ কিছু জায়গা

সুপ্রিয় ব্লগ৭১ এর পাঠকবৃন্দ এবং টিউনার কেমন আছেন সবাই? যারা ঘুরা/ঘারি পছন্দ করেন তাদের জন্য আমার এই পোষ্ট। আমি অনেক ইংশিশ ব্লগ খুঁজে বাছাইকরে এই পোষ্টটি রেডি করেছি। আসাকরি আমার এই পোষ্টি আপনাদের অনেক কাজে আসবে বলে আসাবাদি।

কিউবাঃ-

এটি হলো সেই বিচ্ছিন্ন কারাগার, যেখানে ফিদেল কাস্ত্রো ও তার বাহিনীকে কারাবন্দী অবস্থায় রাখা হয়েছিলো। ঘুরে আসতে পারেন পশ্চিম কিউবার শহর ভিনালেস্‌ থেকে। সেখানকার প্রধান সড়কগুলোতে রয়েছে সারি সারি রঙিন কাঠের ঘর ও পৌর জাদুঘর। আর এই ঘরগুলো মূলত ঔপনিবেশিক যুগের ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে।

ক্রোয়েশিয়াঃ-

প্রাচীর দিয়ে ঘেরা এই শহরটি একাকী পর্যটকদের পছন্দের তালিকায় না থেকে পারে না। ঘুরার উপযুক্ত সময় হলো এপ্রিল ও সেপ্টেম্বর মাস। এই সময়টাতে ড্রুবোভনিকের পরিবেশ উষ্ণ থাকে । ঘুরে বেড়াতে পারেন ঐতিহাসিক পুরো দ্বীপটি। এক ধরনের নৌকা করে উপভোগ করতে পারেন উপসাগরের সৌন্দর্য।

রাজস্থান, ভারতঃ-

রাজাদের এই ভূমিতে প্রাসাদ ও দুর্গের কোনো কমতি নেই। ঘুরতে পারবেন উদয়পুর, জয়পুর, যোধপুর ও জয়সালমের। এই জায়গাগুলোতে খাবার ও থাকার ব্যবস্থা সাধ্যের মধ্যে পরিবেশও ভালো। উটের পিঠে চড়ে দেখতে পারেন মরুভূমির সৌন্দর্য। নভেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে এসে উটের মেলা দেখে আসতে ভুলবেন না!

জর্ডানঃ-

এখানে আপনি দেখতে পাবেন সূর্যাস্তের এক নয়নাভিরাম দৃশ্য। সব থেকে আরো যে মজা পাবেন সেটি হলো ডেড সী নদী। পানির লবণাক্ত ঘনত্বের কারণে আপনি পানির উপরেই ভেসে থাকবেন। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য ও নিস্তব্ধতা আপনাকে আশ্চর্য এক মায়ায় সেখানে আটকে রাখবে। ঘুরে দেখার মতো আরও কিছু জায়গা হলো ওয়াদি রাম, আম্মান, ব্যাপ্টিজম সাইট, আজ্রাক ওয়েটল্যান্ডস, পেট্রা, মাউন্ট নেবো, মাদাবা, দ্য কিংস হাইওয়ে, উম কাইস, দ্য ডেজার্ট ক্যাসেলস, ওয়াদি মুজিব জেরাশ ও আজলোউন।

জাপানঃ-

হোক্কাইডো জাপানের উত্তরে অবস্থিত এই দ্বীপ। দ্বীপটির আবহাওয়া বেশ শীতল হওয়ায় শীতকালে সেখানকার তাপমাত্রা শূন্যের নিচে নেমে যায়। শীতকালে হোক্কাইডোতে বিভিন্ন রকম স্নো-স্পোর্টসএর আয়োজন করা হয়। ঘুরে আপনি দেখতে পারেন উঁচু পাহাড়-পর্বত।

নেপাল

নেপাল নামের উৎপত্তি দুটি শব্দ থেকে। ‘নে’ অর্থাৎ পবিত্র এবং ‘পাল’ অর্থ গুহা। তাই ‘নেপাল’ শব্দটির অর্থ দাঁড়ায় ‘পবিত্র গুহা’। নেপালে গিয়ে পাহাড়ে উঠবেন না, তা তো একেবারেই অসম্ভব ব্যাপার! পর্বতারোহণের অভিজ্ঞতা না থাকলে ছোটখাটো পাহাড়ে যাওয়াই ভালো। নেপালের স্থানীয় কোনো ব্যক্তি বা গাইড সঙ্গে রাখলে ভালো। আরোহণের মাঝে বিরতিতে চায়ের দোকানগুলোতে বসে বিশ্রামও নেয়া যেতে পারে। প্রাচীন ইতিহাস পড়ুন।

মাউন্ট এভারেস্টকে কাছে থেকে দেখার জন্য কিছু বিমান ভাড়া দেয়া হয়। কিন্তু আরোহণ করতে হলে আপনাকে আগে থেকে প্রশিক্ষণ নিতে হবে।

প্রিয় বন্ধুগণ পোষ্টি কেমন লাগলো জানাবেন। আবারও আপনাদের জন্য নতুন কিছু নিয়ে হাজির হবো। ভালো থাকবেন সবাই।

About Rony

mm
যা জানি তা জানাতে চাই ☺

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *