ফেসবুক

ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কত বয়স হওয়া উচিত? জানতে হলে বিস্তারিত পড়ুন।

আমাদের দেশে ফেসবুক ব্যবহারের নির্দিষ্ট কোনও বয়স নেই। ফেসবুকের ওই বেঁধে দেওয়া বয়সকেই নিয়ম বলে মানা হচ্ছে। তবে, ঠিক কত বয়স হলে তা ঠিক মানদণ্ড হবে, এমন সিদ্ধান্ত কেউ দিতে পারেননি। এ-ও নির্দিষ্ট হওয়া যায়নি, ফেসবুক ব্যবহারের জন্য আদৌও কোনও সুনির্দিষ্ট করা উচিত কি না। এই প্রতিবেদন লেখার আগে দেশের বিশিষ্ট তথ্যপ্রযুক্তিবিদ, গবেষক, শিক্ষক, উন্নয়নকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে তারা একেকজন একেক রকম মত দিয়েছেন। সুনির্দিষ্ট একটি বয়সকে কেউ চিহ্নিত করেননি।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে, ১৩ বছরের নিচে কেউ ফেসবুক ব্যবহার করতে পারবেন না। ইউরোপীয় কাউন্সিল প্রস্তাব করেছে, ফেসবুক ব্যবহারকারীর বয়স ১৩-এর মধ্যে হওয়া উচিত। এদিকে, ইউরোপীয় পার্লামেন্ট বলছে, ১৬ বছর। যদিও এই ১৬ বছর বয়স নিয়ে পার্লামেন্টে বিস্তর বাহাসও হয়েছে কিন্তু ১৩ না ১৬? তা পাস হয়নি।

শ্রীলংকাভিত্তিক টেলিযোগাযোগ গবেষণা প্রতিষ্ঠান লার্ন এশিয়ার সিনিয়র পলিসি ফেলো আবু সায়ীদ খান মনে করেন, এটা একান্তই বাবা-মায়ের ব্যাপার। সন্তানের বাবা-মা যখন উপযুক্ত মনে করবেন, তখনই তার সন্তানকে ফেসবুক ব্যবহার করতে দেবেন। এক্ষেত্রে তিনি পশ্চিমা বিশ্বের প্রতি নজর না দেওয়ার পরামর্শ দেন। কারণ তাদের ধ্যান-ধারণা, শিক্ষা, রুচি, সংস্কৃতির সঙ্গে আমাদের মতো নয়। ফলে কে কী করল তা না দেখে, বিচার না করে নিজেদের মতো করেই এগোনো উচিত।

উন্নয়নের জন্য তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান আমাদের গ্রামের প্রকল্প পরিচালক রেজা সেলিম বলেন, বয়স ১৮ বছর হওয়ায় ভালো। আমি মনে করি, ফেসবুক ব্যবহারের বয়স ১৮-এর নিচে হওয়া উচিত হবে না। উন্নত বিশ্বের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, সেসব দেশে আরও কম বয়সের শিশুরা ফেসবুক ব্যবহার করে, আমাদের দেশে তা অনুসরণ করা ঠিক হবে না। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ওইসব দেশের শিশুদের ধ্যানধারণা, শিক্ষা, দায়িত্বশীলতা আলাদা। আমাদের শিশুরা ওদের থেকে অনেক পিছিয়ে। আমাদের শিশুদের সবকিছু বুঝতে, শুনতে, জানতে অনেক সময় লেগে যায়। এ কারণে ১৮ বছর বয়সই উত্তম।

একজন সরকারি চাকরিজীবী আবেদা সুলতানা বলেন, ফেসবুক পড়াশোনার ক্ষতি করে। তাই পড়াশোনা শেষ হওয়ার পরই ফেসবুকে ঢোকা উচিত। বয়স বিবেচনায় ২৫ উপযুক্ত সময় বলে আমি মনে করি।

অভিভাবক গাইডটিতে ফেসবুক, ইউটিউব, স্যাট্টুলেট, আস্ক এফএম, ইন্সটাগ্রাম, টিনডার, ভক্সার, ইক ইয়াক, হোয়াটসঅ্যাপ, স্ন্যাপচ্যাট, ভাইন, কিক মেসেঞ্জার, শটস অব মি অ্যাপ ও ওয়েবসাইট সম্পর্কে অভিভাবকদের সচেতন (বয়সসীমা সংক্রান্ত নিয়মাবলী দৃঢ়ভাবে অনুসরণ করা) থাকারও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান বলেন, ফেসবুক ব্যবহারের জন্য ১৩ বছর বয়সই উপযুক্ত সময়। তার ধারণা, দেখা যাবে ১৩ বছর বয়সীরা আজকাল অনেক কিছু জানে, আবার ৩৩ বছরের একজন হয়তো কিছুই জানে না। ফলে বয়স কোনও ম্যাটার করে না। আমার দৃষ্টিতে ১৩ বছরইজ ফাইন। তিনি বলেন, যেসব দেশের নিজস্ব কনটেন্ট আছে, সেসব দেশে ফেসবুক ততটা জনপ্রিয় নয়। আমাদের সমস্যা হলো আমাদের নিজস্ব কোনও কনটেন্ট নেই। তাহলে আমাদের সন্তানেরা কি করবে- প্রশ্ন করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, দেশে ফেসবুক ব্যবহারকারীর সংখ্যা প্রায় পৌনে দুই কোটি। যদিও এর মধ্যে বেশিরভাগ আইডি ফেক বা ভুয়া।১৩ বছরের নিচে ফেসবুকে আইডি খোলার নিষেধ থাকলেও দেশে অনেক শিশুর নামে ফেসবুক আইডি দেখা যায়।

blog71.com

20minitueblog.blogspot.com

Facebook Comments
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

To Top