যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বহিষ্কৃত সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটকে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট (এনআইসিভিডি) হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। সম্রাটের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় তাকে আবার কারাগারে ফেরত পাঠানো হচ্ছে।

শনিবার (১২ অক্টোবর) বেলা ১১ টায় তাকে হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতাল থেকে তাকে কারাগারে উদ্দেশে নিয়ে যাওয়া হয়। বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন কেরানীগঞ্জ কারাগারের জেলা সুপার মাহবুবুল ইসলাম।

মাহবুব ইসলাম বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে বলেন, সম্রাটের হৃদরোগের কারণে তাকে হৃদরোগ ইনস্টিটিউশনের সিসিইউতে ভর্তি করানো হয়েছিল। ৪ দিন চিকিৎসার পর তার শারীরিক অবস্থা অনেকটা ভালো। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে ছাড়পত্র দেওয়ায় তাকে কারাগারে ফেরত নেওয়া হয়।

এর আগে মঙ্গলবার (৯ অক্টোবর) সম্রাট বুকে ব্যথা অনুভব করলে চিকিৎসার জন্য তাঁকে কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ঢাকায় আনা হয়। সম্রাটকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাঁকে সিসিইউতে পাঠান। সিসিইউতে যাওয়ার পর সম্রাটকে হৃদ্‌রোগ ইনস্টিটিউটে পাঠানোর পরামর্শ দেন চিকিৎসক।

রোববার (৬ অক্টোবর) ভোররাতে যুবলীগের নেতা সম্রাট ও তাঁর সহযোগী এনামুল হককে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থেকে আটক করে র‍্যাব। ওইদিন সম্রাটকে নিয়ে তার কাকরাইলের কার্যালয়ে ভূঁইয়া ট্রেড সেন্টারে অভিযান চালানো হয়। সেখানে পিস্তল, গুলি, ইয়াবা বড়ি, বিদেশি মদ উদ্ধার করা হয়। এ ছাড়া দুটি ক্যাঙারুর চামড়া, বৈদ্যুতিক শক দেওয়ার দুটি যন্ত্র ও লাঠি উদ্ধার করা হয়।

বন্য প্রাণীর চামড়া রাখার দায়ে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়ে রোববার রাতে সম্রাটকে কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়। তার বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক আইনে দুই মামলা করেছে র‌্যাব।

Source: বার্তা নিউজ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here